F.I.R ও G.D সম্পর্কে সেরার সেরা নোট! এটা পড়লে সব ডাউট ক্লিয়ার হবেই হবে

 

deep-explanation-about-first-information-report-in-bengali


F.I.R কী বা এফ.আই.আর কাকে বলে? || What is F.I.R (First Information Report) In Bengali

▪ FIR ; এফ.আই.আর এর সম্পূর্ণ নাম হলো ফার্স্ট ইনফরমেশন রিপোর্ট (First Information Report)। 

CrPC বা ক্রিমিনাল প্রসিডিওর কোডে ১৫৪ ধারার অধীনে নথিভুক্ত তথ্যই ফার্স্ট ইনফরমেশন রিপোর্ট বা FIR (First Information Report) নামে পরিচিত। 

▪ কোন ব্যক্তি পুলিশের কাছে যদি এমন কোন অভিযোগ করে থাকেন, যেটা পুলিশের কাছে একটা গুরুতর অপরাধ বা cognizable offense তাহলে সেটা হবে একটা FIR. 

FIR আর GD মধ্যে মূল পার্থক্য এটাই যে,  FIR মানেই হলো এমন কোনো অভিযোগ যা খুবই গুরুতর। আর অন্যদিকে GD হলো সাধারণ একটা অভিযোগ যেখানে কোনো ব্যক্তির শাস্তির বিষয়টা যুক্ত থাকেনা। 

▪ থানায় সেইসমস্ত ঘটনা গুলোই FIR হিসাবে নেওয়া হয়,যা খুবই গুরুতর। যেমন- মারামারি, চুরি,ডাকাতি, খুন, হত্যা, আত্মহত্যা ইত্যাদি। 

▪ FIR মৌখিক এবং লিখিত দুই ভাবেই করা যেতে পারে। 

১৯৭৩ সালের ইন্ডিয়ান পেনাল কোডের ১৫৪তম ধারা অনুযায়ী FIR হলো সেই প্রথম অভিযোগ যার ভিত্তিতে পুলিশ তাদের পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। 

পলিটিকাল সাইন্স মেজর + SEC নোট পেতে টেলিগ্রামে জয়েন করো👉 : চ্যানেল লিঙ্ক এখানে

জেনারেল ডাইরি (GD) এবং এফ.আই.আর (FIR) এর মধ্যে পার্থক্য কী কী? || Difference Between G.D (General Diary) And F.I.R (First Information Report)

F.I.R এবং GD এর মধ্যে একটা নয় বরং একাধিক বিষয়ে পার্থক্য রয়েছে। যেমন- 

▪ কোনো পুলিশ স্টেশনে যখন কোন নাগরিক সাধারণ কোন অভিযোগ জানান,,যেখানে কোন গুরুতর ঘটনা যুক্ত নয় এবং পুলিশ সেই অভিযোগটা নিজেদের রেকর্ডের অন্তর্ভুক্ত করে নেয়, তখন সেটাকে বলা হয় জেনারেল ডাইরি (GD). অন্যদিকে F.I.R হচ্ছে কোনো আমলযোগ্য অপরাধ বা Cognizable Offense-এর লিখিত অভিযোগ।

▪ কোন গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র হারিয়ে যাওয়ার পর, টাকা হারিয়ে যাওয়া, ফোন হারানো, সিম কার্ড হারানো এই ধরনের ঘটনাগুলোর ক্ষেত্রে জেনারেল ডায়েরি করা যায়। আবার কোন ব্যক্তির হুমকি অথবা কোন ব্যক্তি যদি মনে করেন যে কোনো ব্যক্তির থেকে তার কোন ক্ষতি হতে পারে,তাহলে তিনি সেই ঘটনাটা ঘটার আগে জেনারেল ডায়েরি করতে পারেন। অন্যদিকে, কোনো চুরি, ডাকাতি, মারামারি, খুন বা অন্যান্য আমলযোগ্য অপরাধ ঘটার পর F.I.R করা যায়। 

▪ জেনারেল ডাইরি লেখার সময় তার সাথে কোন ধারা যুক্ত করা যায় না। কিন্তু F.I.R লেখার সময় তাতে ধারা যুক্ত করা হয়।

▪ অফলাইন এবং অনলাইন দুইভাবেই জেনারেল ডাইরি করা যেতে পারে। 

▪ জেনারেল ডাইরির ক্ষেত্রে যে অভিযোগ পুলিশের কাছে করা হয়,সেখানে কোন ব্যক্তির খুব কঠিন শাস্তির বিষয় যুক্ত থাকে না। কিন্তু যার বিরুদ্ধে F.I.R করা হয়, সেই মামলায় অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির বিষয় যুক্ত থাকে বা থাকতে পারে।

What Is Zero F.I.R || জিরো এফ.আই.আর কাকে বলে? 

▪ যেকোনো স্থানে অপরাধ ঘটার পর যেকোনো পুলিস স্টেশনে দায়ের করা F.I.R-ই হলো জিরো এফ.আই.আর।

একজন ব্যক্তি যখন এমন কোনো জায়গায় যায়, যেই জায়গা কোন থানার এক্তিয়ার বা Jurisdiction এর মধ্যে পড়ে সেটা তার জানার থাকে না, এবং সেই স্থানে তার সাথে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই বা অন্য কোনো আমলযোগ্য অপরাধ ঘটে, তখন সেই অপরাধের শিকার হওয়া ব্যক্তি বা সেই ব্যক্তি বা ঘটনার সাথে যুক্ত অন্য কেউ, সেই অঞ্চলে ঘটে যাওয়া অপরাধের F.I.R যেকোনো থানায় দায়ের করতে পারে। যেকোনো থানায় দায়ের করা এই ধরনের F.I.R- জিরো এফ.আই.আর ( Zero F.I.R) নামে পরিচিত। 

▪ CrPC Section 154 অনুযায়ী যেকোনো থানায় F.I.R করা যাবে। তা সেই পুলিশ স্টেশনের এক্রিয়ারের মধ্যে অপরাধ হোক বা না হোক। 

▪ 2012 সালে নির্ভয়া গ্যাংরেপের সময় ভারতে প্রথম Zero F.I.R এর ঘটনা সামনে আনা হয়। 

▪ যে পুলিশ স্টেশনে Zero F.I.R দায়ের করা হয়, সেই  পুলিশ স্টেশনের উচ্চপদস্থ অফিসার একটা Forwarding লেটারের মাধ্যমে সেই F.I.R সেই পুলিশ স্টেশনে পাঠায়, যে পুলিশ স্টেশনের এক্তিয়ারের মধ্যে তা পড়বে। এবং এক্তিয়ারভুক্ত পুলিশ স্টেশনে পাঠানোর পর সেই পুলিশ স্টেশন সেই F.I.R এর ভিত্তিতে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

▪ Zero F.I.R মহিলাদের অধিক সুরক্ষা দিয়ে থাকে। কারণ মহিলা যদি চান, তাহলে সময় নষ্ট না করে মহিলা যেই পুলিশ স্টেশনে Zero F.I.R  করেছেন, সেই পুলিশ স্টেশনের অফিসারদেরই তাদের পদক্ষেপ গ্রহণ করার কথা বলতে পারেন।।

কিভাবে এফ.আই.আর(F.I.R) করতে হয়? বা কিভাবে F.I.R করা যায়?? 

▪ যার সাথে ঘটনা ঘটেছে, সেই ব্যক্তি, তার পরিবারের কোনো সদস্য বা অন্য এমন কেউ যার সাথে সেই ঘটনার যোগ্যসূত্র আছে, সে- নিজে থানায় গিয়ে মৌখিক ভাবে, নিজে লিখিত ভাবে এবং চাইলে ফোন কলের মাধ্যমে এবং সবশেষে চাইলে অনলাইনেও F.I.R দায়ের করতে পারেন।।

কে বা কারা F.I.R করতে পারবে? 

কোনো ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তিনজন থানায় FIR করতে পারে। 

১) প্রথমত, যার সাথে ঘটনা ঘটেছে, -সে নিজে বা তার পরিবারের এমন কোনো সদস্য যে সমস্ত ঘটনা জানেন বা ঘটতে দেখেছেন। 

২) দ্বিতীয়ত, এমন কোনো ব্যক্তি যিনি সেই ঘটনার সাথে যুক্ত এবং তিনি সমস্ত ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বা তিনি সবটা জানেন। 

৩) এবং সবশেষে পুলিশ নিজেও কোন ঘটনার এফআইআর করতে পারে। কোন পুলিশের কাছে যদি অনলাইন বা অফলাইন সূত্রে কোন ঘটনার অভিযোগ জানানো হয় তাহলে সেই থানার বড়বাবু ঘটনাস্থলে হলে একজন সাব ইন্সপেক্টর কে পাঠাবেন এবং সেই sub inspector ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে সেই ঘটনার সমস্ত বিবরণ নেবেন এবং তিনি তা লিপিবদ্ধ করবেন। পরবর্তীতে সেই বিবরণের ভিত্তিতে পুলিশ নিজে ঘটনার FIR দায়ের করতে পারে।।

▪ কাউন্টার F.I.R কী? থানায় কি কাউন্টার F.I.R করা যায়??

▪ থানায় যে শুধুমাত্র এক পক্ষই এফআইআর করতে পারে বিষয়টা তেমন নয়। অভিযোগকারী প্রথম পক্ষ যদি কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে এফআইআর করে থাকে, আর অভিযুক্তের যদি মনে হয় তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে, তাহলে সেই ব্যক্তির অধিকার রয়েছে অভিযোগকারীর বিরুদ্ধে আবার পাল্টা অভিযোগ অর্থাৎ Counter F.I.R করার। 


আরও জানো👉 ; অ্যারেস্ট ওয়ারেন্ট সম্পর্কে A2Z বিষয়

#এটাও পড়ে দেখো👉; পারিবারিক হিংসা আইন সম্পর্কে A1 নোট 

এটাও পড়ে দেখো👉 ; যৌতুক নিষিদ্ধকরন আইনের উপর সেরার সেরা নোট


Tags : NBU Political Science SEC Note | 1st Sem Political Science SEC Note | NBU 1st Sem SEC Political Science Questions Answers | 1st সেমেস্টার পলিটিকাল সাইন্স SEC নোট | NBU 1st সেমেটার SEC পলিটিকাল সাইন্স প্রশ্ন উওর